Home সিনে দুনিয়া দর্শকের সাথে প্রতারণা নিয়ে ওমরসানী , মৌসুমী ও ফেরদৌস’র ভাষ্য
দর্শকের সাথে প্রতারণা নিয়ে ওমরসানী , মৌসুমী ও ফেরদৌস’র ভাষ্য

দর্শকের সাথে প্রতারণা নিয়ে ওমরসানী , মৌসুমী ও ফেরদৌস’র ভাষ্য

0
0

স্টাফ রিপোর্টার- আগামীকাল মুক্তি পাচ্ছে ওমরসানী,  মৌসুমী, ফেরদৌস অভিনীত সিনেমা দিলশাদুল হক শিমুল পরিচালিত ‘লিডার’ সিনেমাটি। সিনেমাতে যারা অভিনয় করেছেন তাদের প্রত্যেকরই ভাষ্য এমন যে শুটিং শেষ না করে, ডাবিং শেষ না করেই সিনেমাটি মুক্তি দেয়া হচ্ছে। এই সিনেমা যাতে পুরোপুরিভাবে শেষ না করে মুক্তি না দেয়া হয় সে জন্য ওমরসানী মৌসুমী প্রযোজক সমিতি, পরিচালক সমিতি, সেন্সর বোর্ডের কাছে অভিযোগ দেবার পরও কীভাবে সিনেমাটি মুক্তি পাচ্ছে তা বোধগম্য নয় তাদের। একটি সিনেমা সম্পূর্ণ শেষ না করে এভাবে মুক্তি দিলে তা দর্শকের সাথে প্রতারণারই সামিল বলে দাবী করেন ওমরসানী। বিষয়টি প্রসঙ্গে ওমরসানী বলেন, ‘ লিডার সিনেমাটির গল্প শুরুতেই আমার কাছে ভালোলেগেছিলো। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেই ভালোলাগা থাকেনি। একজন পরিচালক একটি সিনেমাকে কীভাবে ধ্বংস করতে পারে তার বাস্তব প্রমাণ দেখলাম আমি শিমুলের সঙ্গে কাজ করতে গিয়ে। এই সিনেমায় আমি আর মৌসুমী ডাবিং করিনি। সিনেমার ষাট ভাগ শুটিং বাকী। এই প্রতারণা কীভাবে শিমুল করেছে তা আমার বোধগম্য নয়। কেন করেছে আমার তা জানা নেই। শিমুল চাইলেই সিনেমাটি শেষ করে তারপর মুক্তি দিতে পারতেন। এক বছর আগেই আমি পরিচালক সমিতির কাছে অভিযোগ করেছিলাম। সমিতির পক্ষ থেকে আমাকে এবং মৌসুমীকে ডাকা হয়। সেখানে সিদ্ধান্ত নেয়া হয় যে মুটিং শেষ করবেন, ডাবিং শেষ করবেন এবং পারিশ্রমিকও দেয়া হবে। কিন্তু কিছুই না করে একটি অসমাপ্ত সিনেমা কাল মুক্তি পাচ্ছে। এই যে দর্শকের সাথে প্রতারণা করা হচ্ছে এটা মেনে নেয়া যায়না। আমি একজন সচেতন চলচ্চিত্র কর্মী হিসেবে বলতে চাই লিডারকে ঘিরে কোনরকম দোষ আমরা আমাদের কাঁধে নিচ্ছিনা। আমি লিডার’ সিনেমাকে বর্জন করছি। চলচ্চিত্রকে বাঁচাতে হলে সবাইকে রুখে দাঁড়াতে হবে। আর চলচ্চিত্রের বিচার বিভাগে আসলে কোনদিকে যাচ্ছে সেটা প্রশ্নবিদ্ধ এখন।’ মৌসুমী বলেন,‘ একজন শিল্পী হিসেবে সবসময়ই আমি ্রপযোজক পরিচালকদের সহযোগিতা করে এসেছি। কিন্তু শিমুল আমার সঙ্গে যে প্রতারণা করেছেন তা একেবারেই ঠিক হয়নি। একজন মৌসুমী একদিনে তৈরী হয়না। সেই মৌসুমী ভক্তদের সঙ্গে প্রতারণা করা কোনভাবেই শিমুলের উচিৎ হবেনা। আমার বিশ্বাস শিমুল তার ভুল শুধরে নিয়ে আবার কাজ করবেন এবং যথাযথভাবে সিনেমাটি শেষ করবেন।’ গাজীপুরে শুটিং নিয়ে ব্যস্ত ফেরদৌস। ফেরদৌস বলেন,‘ একটি সিনেমার শুটিং শেষ না করে ডাবিং শেষ না করে কেমন করে তা মুক্তি পাচ্ছে তা আমারও বোধগম্য নয়। এই দেশের চলচ্চিত্রাঙ্গনে এসব দেখারই হয়তো বাকী ছিলো।’